Breaking News
যে ৫টি অভ্যাস লিভারের ক্ষতি করে

যে ৫টি অভ্যাস লিভারের ক্ষতি করে

যকৃৎ বা লিভার আমাদের শরীরের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ। আমাদের শরীরের যত ক্ষতিকারক টক্সিন জমে, তা শরীর থেকে ছেঁকে বের করে দেয় এই লিভার। লিভারের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা নষ্ট হলে শরীরে জমে যাওয়া টক্সিন শরীরেই থেকে যাবে। এর ফলে শরীরের একের পর এক অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বিকল হতে শুরু করবে। তাই শরীর সুস্থ রাখতে লিভার সুস্থ রাখা অত্যন্ত জরুরী।

কিন্তু অজান্তেই বেশ কয়েকটি অভ্যাস আমাদের লিভারের মারাত্মক ক্ষতি করে চলেছে। সময় মতো সতর্ত না হলে  অকালেই লিভার তার স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা হারিয়ে ফেলবে।

 

আসুন জেনে নেওয়া যাক এমন ৫টি অভ্যাসের কথা, যেগুলি আমাদের অজান্তেই লিভারের মারাত্মক ক্ষতি করে চলেছেঃ

 

১) সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর দীর্ঘক্ষণ খাবার না খেয়ে থাকার অভ্যাস ও লিভারের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর! দীর্ঘদিন ধরে এই অনিয়ম চলতে থাকলে লিভার তার স্বাভাবিক কর্মক্ষমতাও হারিয়ে ফেলে।

২)মাত্রাতিরিক্ত পরিমাণে ওষুধ খেলে লিভার নষ্ট হয়ে যেতে পারে৷ বিশেষ করে অতিরিক্ত পরিমাণে ব্যথা কমানোর ওষুধ খেলে লিভারের কর্মক্ষমতা ক্রমশ হ্রাস পায়। এ ছাড়াও ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় লিভার ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

 

৩)মাত্রাতিরিক্ত পরিমাণে খাওয়া দাওয়ার অভ্যাসও লিভারের পক্ষে ক্ষতিকর। কোনও পদ খুব পছন্দ হয়েছে বলে অনেকেই দৈনন্দিনের তুলনায় অনেকটাই বেশি পরিমাণে খেয়ে ফেলেন। এর ফলে হঠাৎ করে লিভারের উপরে বেশি চাপ পড়ে এবং লিভার ক্ষতিগ্রস্ত হয় তার স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা।

 

৪)দেরি করে ঘুমোতে যাওয়া এবং দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা- দু’টোই লিভারের পক্ষে ক্ষতিকর। এই অভ্যাসের ফলে হজমের নানা সমস্যাসহ শরীরের একাধিক সমস্যা সৃষ্টি হয়। এর মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে লিভারের উপরে।

 

৫)অনেকেই সকালে ঘুম থেকে উঠে যাওয়ার পর ও আলস্য করে পায়খানা-প্রস্রাবের চেপে রেখেই শুয়ে থাকেন। এই অভ্যাসও লিভারের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর। দীর্ঘদিন ধরে এই অনিয়ম চলতে থাকলে লিভার তার স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা ও হারায়।

বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ

Check Also

গ’বেষ’ণা….কিভাবে বাড়ানো সম্ভব মে’য়েদের স্ত’ন দেখলে বাড়বে ছেলেদের আয়ু

মে’য়েদের স্ত’ন দেখলে ছেলেদের আয়ু বাড়ানো সম্ভব

মে’য়েদের স্ত’ন দেখলে বাড়বে ছে’লেদের আয়ু! মানুষের আয়ু কিভাবে বাড়ানো সম্ভব?? কিভাবে সুখে থাকা সম্ভব?” …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!